নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যস্ত নারায়ণগঞ্জ সিটি

নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যস্ত নারায়ণগঞ্জ সিটি , করপোরেশন এলাকায়। তবে ক্ষমতাসীন দলের সংসদ সদস্য

শামীম ওসমান ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত ছিলেন না। তবে তার নাম আলোচনায় রয়েছে। আওয়ামী লীগের প্রার্থী

সেলিনা হায়াৎ আইভীর সঙ্গে তার বিরোধও সামনে আসছে। আইভীর প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপির তৈমুর

আলম খন্দকারের ভেতরে সংসদ সদস্যদের সমর্থন রয়েছে বলেও নগরীতে গুঞ্জন রয়েছে। তাই অনেকেই

বলছেন, এই ভোটে শামীম ওসমান না থাকলেও তার ছায়া আছে।নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের

নেতাদের সঙ্গে কথা বলে আইভীর অনুসারীরা সন্দেহ করছেন, বিএনপি নির্বাচনে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত সত্ত্বেও দলীয়

নেতা তৈমুর আলম খন্দকার স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার পেছনে শামীম ওসমানের হাত রয়েছে। তৈমুর আলম বিএনপি

চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা। তার ভাই মাকসুদুল আলম (খোরশেদ) নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১৩

নম্বরওয়ার্ডের কাউন্সিলর। তার ওয়ার্ডে প্রার্থী ছিলেন আওয়ামী লীগের মহানগর সহ-সভাপতি রবিউল হোসেন। প্রশ্ন

নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যস্ত নারায়ণগঞ্জ সিটি

তুলে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন এমপি শামীমের অনুসারী হিসেবে পরিচিত রবিউল।তৈমুরের ভাই খোরশেদের প্রতিদ্বন্দ্বিতা কমাতে সংসদ সদস্যদের পরামর্শে রবিউল সরে এসেছেন বলে এলাকায় প্রচার রয়েছে। যাতে খোরশেদ মেয়র প্রার্থী তৈমুরকে আরও সময় দিতে পারেন। এ অভিযোগে রবিউলকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।এছাড়া নারায়ণগঞ্জ মহানগর হেফাজতে ইসলামের বিলুপ্ত কমিটির সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌসুর রহমান এক বৈঠকে প্রকাশ্যে তৈমুরকে সমর্থন জানিয়েছেন। হেফাজতের এই নেতা শামীম ওসমানের অনুসারী হিসেবেও পরিচিত।এসব বিষয়ে জানতে শামীম ওসমানের সঙ্গে কথা হয় এ প্রতিবেদকের। তবে নির্বাচন-সংক্রান্ত কোনো বিষয়ে গণমাধ্যমের কাছে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি তিনি।সূত্রটি জানায়, শামীম ওসমান আশা করেছিলেন আইভী তার কাছে ক্ষমা চাইবেন। এখন তিনি দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরাসরি নির্দেশনা আশা করছেন।তবে এমপির ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত প্রথম

সংসদ সদস্য শামীম ওসমান আচরণবিধির

সংসদ সদস্য শামীম ওসমান আচরণবিধির জন্য মাঠে আসছেন না; দলীয় প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চালাতে সবাইকে নির্দেশ দেন তিনি। তার অনুসারীসহ দলের সবাই মাঠে।শামীম ওসমানকে ফাঁসানোর লক্ষ্যেই এই অপপ্রচার চালানো হয়েছে বলে দাবি করেন আবু হাসনাত। বিএনপি-জামায়াত-হেফাজত মিলে তৈমুরকে নির্বাচন করছে। তার সঙ্গে আপস করা সম্ভব নয়।জানা গেছে, আইভী ছাড়াও আবু হাসনাত ও চন্দন শীল, মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহাও এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চান। এই তিন নেতা শামীম ওসমানের ঘনিষ্ঠ বলে জানা গেছে। খোকন সাহার সঙ্গে যুবলীগের এক নেতার মধ্যে ৫ লাখ টাকা চাওয়ার ফোনালাপ ইতিমধ্যেই বিতর্কের জন্ম দিয়েছে। যদিও আইভীর প্রচারণায় তার উপস্থিতি দেখা যাচ্ছে না। কেন্দ্রীয় নেতারা নারায়ণগঞ্জে এলে তাদের সঙ্গে সবাই উপস্থিত থাকেন। তবে সেখানেও থাকছেন না শামীম ওসমান। এ ছাড়া তিনি গোপনে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ইন্ধন বা সাহস যোগাচ্ছেন বলে নারায়ণগঞ্জে গুঞ্জন রয়েছে।

আরো পড়ুন 

About work

Check Also

গত বৃহস্পতিবার সিরাজগঞ্জে আওয়ামী লীগ-বিএনপি

গত বৃহস্পতিবার সিরাজগঞ্জে আওয়ামী লীগ-বিএনপি

গত বৃহস্পতিবার সিরাজগঞ্জে আওয়ামী লীগ-বিএনপি , সংঘর্ষের সময় হাতে আগ্নেয়াস্ত্রসহ চারজনকে শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.